ক্রিকেট সমর্থক – কখনকি এভাবে ভেবে দেখেছেন

বর্তমান যুগে ক্রিকেট অত্যন্ত একটি জনপ্রিয় খেলা। দিন দিন এই খেলার জনপ্রিয়তা আগের মত বেড়েই চলেছে সেটা বললে হয়ত ভুল হবে, বরং অনেকটাই কমে গেছে একদিক থেকে চিন্তা করলে। যেমন বলা যায় – একটা সময় ভারত বনাম পাকিস্তান এর একদিন এর খেলা মানে অনেক বেশি কিছু মনে হত , সবাই অনেক আগ্রহ নিয়ে ক্রিকেট খেলা উপভোগ করত। অট্রেলিয়া বনাম সাউথ আফ্রিকা , বাংলাদেশ বনাম জিমবাবুয়ে এইসব একদিনের খেলাও এর ব্যতীক্রম ছিলনা। সে সময় আসলেই সবাই ক্রিকেট খেলাটা অনেক বেশিই উপভোগ করত। কিন্তু এখন যুগ বদলে গেছে। এই বদলটা ভালো দিকে না হয়ে বরং খারাপ দিকেই হয়েছে বেশি।
পূর্বে কোনো দল যখন কোনো টুর্নামেন্ট খেলার জন্যে কোনো দেশের মাটিতে পা ফেলত তখন সাগতিকরা খুব শ্রদ্ধার সাথে তাদের বরণ করতেন। এমন না যে এখন সেভাবে বরণ করেননা । এখনো করেন । কিন্তু আমরা সাধারণ মানুষদের মাঝে সেই সম্মান বোধ আর কাজ করেনা। এখন সামাজিক গণমাধ্যমগুলিতে খুব বাজে ভাবে আমরা দেশের মানুষ্ টুর্নামেন্ট খেলতে আশা সেই দলগুলিকে বরণ করি । বিভিন্ন অশ্লীল ভাষায় তাদেরকে বকাঝকা করি, এটি একদম ই ঠিক নয়। হাঁ, এটা ঠিক যে সে দেশের মানুষ্ও গণমাধ্যমে একই ভাবে স্বাগতিক দেশের সাধারণ মানুষদের কথার সমালোচনা করেন, তাই বলে তো এই নয় যে তারা যা করবে আমাদের একই কাজ করতে হবে !
এইসব কথা বলার পেছনের কারণটি বলছি –
আপনারা কি কখনো নিজে থেকে চিন্তা করে দেখেছেন যে, যে দল টুর্নামেন্ট খেলতে আসে এবং যারা সাগতিক দল এই দুটি দলের (যারা সরাসরি ক্রিকেট এর সাথে যুক্ত) কেউ কিন্তু একে অপরকে অকত্থ ভাষায় বকাঝকা করেননা, তারা কিন্তু টুর্নামেন্টটিকে খুব সহজ ভাবেই গ্রহণ করেন , তারা যতদুর সম্ভব পরস্পরের মাঝের সম্মানটি সবার সামনে ধরে রাখেন ।
কিন্তু আমরা ক্রিকেট সমর্থকরা (যারা সরাসরি ক্রিকেট এর সাথে যুক্ত না) শুধু শুধু অকত্থ ভাষায় তাদের সমালোচনা করেই চলেছি। আমরা কখনো কি চিন্তা করে দেখেছি এধরনের সমালোচনা শুধু আমাদেরকেই নিচু করছে আর দশ জনের সামনে, এর চেয়ে বেশি কিছু নয়।
কি লাভ এধরণের অশ্লীল ভাষায় সমালোচনা করে নিজেকে নিচু করার !
কি লাভ এধরণের অশ্লীল ভাষায় সমালোচনা করে নিজের পাপ বাড়ানোর !
কি লাভ এধরণের অশ্লীল ভাষায় সমালোচনা করে নিজেকে অন্য দেশ এমনকি নিজের দেশের মানুষের সামনে ছোটো করার !
আসুন আমরা শুধু খেলাটিকে উপভোগ করি, খেলাটাকে খেলা হিসেবেই দেখি, যুদ্ধ হিসেবে নয়।

Leave a Reply